অস্ট্রেলিয়াতে

অস্ট্রেলিয়া তার সীমান্ত সুরক্ষা ক্ষমতা জোরদার করেছে। কোনো ব্যক্তি অস্ট্রেলিয়ায় জাহাজে অবৈধভাবে ভ্রমণ করলে তাকে সনাক্ত করা, আটকানো এবং ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

অস্ট্রেলিয়ার সীমান্ত এখন অবৈধ সামুদ্রিক অভিবাসনের জন্য বন্ধ

অস্ট্রেলিয়ার কাছে মানুষ পাচার মোকাবেলার জন্য, অস্ট্রেলিয়ায় অবৈধ অভিবাসনে বাধাদানের জন্য এবং মানুষদের নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য অসুরক্ষিত যাত্রা করার চেষ্টাকে প্রতিহত করার জন্য কঠোর সীমান্ত সুরক্ষার নীতিমালা রয়েছে।

অস্ট্রেলিয়া'র নীতি হল মানুষ পাচারকারী নৌকাকে, যেক্ষেত্রে নিরাপদ, ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া ।

নৌকায়/জলযানের মাধ্যমে অবৈধভাবে অস্ট্রেলিয়ায় ভ্রমণ করে কোনও ব্যাক্তিরই সেখানে অবস্থানের অনুমতি নেই।

দুর্ভাগ্যবশত, মানুষ এখনও অস্ট্রেলিয়ায় ভুল পথে প্রবেশের চেষ্টা করে তাদের অর্থের অপচয় এবং জীবনের ঝুঁকি নিচ্ছেন।

অস্ট্রেলিয়ার সীমান্ত রক্ষা এবং মানুষ পাচার প্রতিরোধ করাটা কেবলমাত্র অস্ট্রেলিয়া সরকারের কাজ নয়; এক্ষেত্রে সবাইকে নিজ নিজ ভূমিকা পালন করতে হবে।

আপনি আপনার সম্প্রদায়ের লোকজনকে, বা বিদেশে বসবাসকারী আত্মীয় ও পরিজনকে অস্ট্রেলিয়ার শক্তিশালী সীমান্ত সুরক্ষা নীতিমালার কথা বলার মাধ্যমে সাহায্য করতে পারেন।

  • একটি অস্ট্রেলীয় ভিসা সহকারে , অস্ট্রেলিয়ায় সঠিক পথে প্রবেশ করতে মানুষকে উৎসাহিত করুন।
  • অস্ট্রেলিয়ায় নৌকা/জলযানের মাধ্যমে অবৈধভাবে প্রবেশের চেষ্টা করাটা যে অত্যন্ত বিপজ্জনক এবং সময় ও অর্থের অপচয় সেটি ব্যাখ্যা করুন।
  • 1800 009 623-নম্বরে সীমান্ত নজরদারির (বর্ডার ওয়াচ) কাছে মানুষ পাচারের ঘটনা রিপোর্ট করুন। রিপোর্ট বেনামীস্বত্বে করা যেতে পারে ।

অস্ট্রেলিয়ার সীমান্ত অবৈধ মাইগ্রেশনের জন্য বন্ধ থাকবে।

আমি মেজর জেনারেল ক্রেইগ ফুরিনি। অস্ট্রেলিয়ার অপারেশন সোভেরেইন বোর্ডারস এর নতুন কমান্ডার হিসেবে, নৌকায় করে যারা অবৈধভাবে অস্ট্রেলিয়ায় আসার কথা ভাবছে তাদের প্রতি আমার একটি সহজ বার্তা আছে। আমার আদেশ অনুযায়ী, অস্ট্রেলিয়ার বোর্ডার অবৈধ মাইগ্রেশনের জন্য বন্ধ থাকবে। আপনি যদি নৌকায় করে অবৈধভাবে অস্ট্রেলিয়ায় আসার চেষ্টা করেন, তাহলে আপনাকে ঢুকতে দেওয়া হবে না এবং যে দেশ থেকে আপনি এসেছেন সেখানে কিংবা আপনার স্বদেশে আপনাকে ফেরত পাঠানো হবে। সীমান্ত সুরক্ষা এবং সাগরে মৃত্যু ঠেকাতে অস্ট্রেলিয়া বদ্ধপরিকর। এর কোনো পরিবর্তন হবে না। অস্ট্রেলিয়ার সীমান্ত বছরের প্রতিটি দিনই নজরদারী ও টহলের মধ্যে সুরক্ষিত থাকে। এবং আমাদের সীমান্ত সুরক্ষা বাহিনী আগের চেয়ে অনেক বেশী শক্তিশালী।

অস্ট্রেলিয়ার সীমান্তের শক্তি বৃদ্ধি করা হয়েছে

অস্ট্রেলিয়ার সীমান্তের শক্তি বৃদ্ধি করা হয়েছে

অস্ত্রেলিয়ান সরকারের অপারেশন সোভেরেইন বর্ডারস চালুর পর থেকে গত পাঁচ বছরে, আমরা সাফল্যের সাথে অস্ট্রেলিয়ায় নৌকা আসা বন্ধ করেছি এবং অস্ট্রেলিয়ার প্রতি মানব পাচারকারীদের হুমকি প্রতিহত করেছি।.

অস্ট্রেলিয়ার কর্তৃপক্ষ কেবল ৩৩ টি জাহাজই আটকাইনি, বরং ৮২৭ জন লোককে তাদের যাত্রাস্থলে ফেরত পাঠিয়েছিল, তবে আমরা আমাদের আঞ্চলিক অংশীদারদের সাথে কাজ করে ৭০ টিরও বেশী মানব পাচারের উদ্যোগকে দেশ ছাড়ার আগেই ভণ্ডুল করে দিয়েছি।.

সমুদ্র পথে মানব পাচার অস্ট্রেলিয়ার সীমান্ত নিরাপত্তার প্রতি এখনও হুমকি হয়ে আছে।.

সাম্প্রতিককালে ভিয়েতনাম থেকে আগত মানব পাচারকারীদের নৌকা সময়মত আমাদের এটাই মনে করিয়ে দিচ্ছে যে এই হুমকি এখনও দূর হয়নি।.

এই লোকগুলোকে আটক করে আমরা ফেরত পাঠিয়েছিলাম। এদের কেউই অস্ট্রেলিয়ায় বসতি গড়তে পারেনি। .

এবং এই নৌকাটি ফেরত গেলেও, মানব পাচারকারীরা এর অস্ট্রেলিয়ায় পৌঁছানোকেই তাদের প্রচারের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে যাতে করে তারা অন্য অসহায় লোকদের নৌকায় উঠতে উৎসাহিত করতে পারে।.

এসব অপরাধী মানব পাচারকারীদের কথা শুনবেন না।.

অস্ট্রেলিয়া অতিরিক্ত নজরদারী বাড়িয়েছে এই হুমকিকে মোকাবিলা করতে ।.

আপনি যদি অবৈধভাবে নৌকায় করে অস্ট্রেলিয়ায় আসার চেষ্টা করেন, তাহলে আপনাকে এই দেশে ঢুকতে দেওয়া হবে না।.

আমাদের সীমান্ত নিরাপত্তা সংক্রান্ত নীতিমালাগুলোর পরিবর্তন হয়নি, এবং সেটা হবেও না।.

আমরা আমাদের দেশের সার্বভৌমত্ব আর নিরাপত্তার বিষয়ে আপোষ করব না।.

আঞ্চলিক প্রক্রিয়াকরণ ব্যবস্থা অব্যাহত থাকবে এবং এই প্রক্রিয়ার আওতায় যেই পড়বে তাকে অস্ট্রেলিয়ায় পুনর্বাসিত করা হবে না।.

অপারেশন সোভেরেইন বর্ডারস এর শক্তিশালীকরণ মানব পাচারকারীদেরকে এবং যারা তাদের সহায়তা নিচ্ছে তাদেরকে একটি জোরালো বার্তা দিচ্ছে আমাদের সীমান্ত রক্ষা, মানব পাচারকারীদের প্রতিহত করা এবং সমুদ্রে মৃত্যু ঠেকাতে অস্ট্রেলিয়ার সরকারের সংকল্প আগের চেয়ে অনেক বেশী জোরালো।.

অস্ট্রেলিয়ার নৌকা ফেরত পাঠানোর নীতির কোনো পরিবর্তন হয়নি

যেকেউ অবৈধভাবে নৌকাতে করে অস্ট্রেলিয়াতে আসার চেষ্টা করলে তাকে শণাক্ত করা হবে, বাধা দেয়া হবে এবং অস্ট্রেলিয়ার জলভাগ থেকে নিরাপদে সরিয়ে নেয়া হবে । এই নিয়ম সবার জন্য প্রযোজ্য । এর কোনো ব্যতিক্রম হবে না ।