অস্ট্রেলিয়ার বাইরে

অস্ট্রেলিয়া তার সীমান্ত সুরক্ষা ক্ষমতা জোরদার করেছে। কোনো ব্যক্তি অস্ট্রেলিয়ায় জাহাজে অবৈধভাবে ভ্রমণ করলে তাকে সনাক্ত করা, আটকানো এবং ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

অস্ট্রেলিয়ার সীমান্ত এখন অবৈধ সামুদ্রিক অভিবাসনের জন্য বন্ধ

কোন ব্যক্তি কোন অননুমোদিত নৌকা/জলযানের মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়ায় প্রবেশের চেষ্টা করলে, তাকে তার নিজের দেশে বা অন্য দেশে স্থানান্তরের জন্য ডিপার্চারের দিকে পাঠানো হবে।

নৌকায়/জলযানের মাধ্যমে অবৈধভাবে অস্ট্রেলিয়ায় ভ্রমণ করলে কোন ব্যক্তিই সেখানে থাকার অনুমতি পাবেন না।

অস্ট্রেলিয়া'র সীমান্ত রক্ষা, মানুষ পাচার প্রতিরোধ এবং উন্মুক্ত সমুদ্রে বিপজ্জনক নৌকা/জলযান ব্যবহারের চেষ্টা থেকে মানুষকে বিরত করতে অস্ট্রেলিয়ার কঠোর সীমান্ত সুরক্ষা নীতি ডিজাইন করা হয়েছে।

মানুষ পাচারকারীদের মিথ্যা কথায় বিশ্বাস করবেন না

মানুষ পাচারকারীরা মানুষের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার জন্য অস্ট্রেলিয়ায় স্থায়ী বাসস্থানের মিথ্যা প্রতিশ্রুতি ব্যবহার করে মানুষকে ভুল বোঝায়। তাদের মিথ্যা কথায় বিশ্বাস করবেন না। আসল সত্যিটা হল, কোন ব্যক্তি মানুষ পাচারকারীকে অবৈধ নৌকা/জলযানের মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়ায় প্রবেশের জন্য যে অর্থ প্রদান করেছেন, সেই অর্থের উপযুক্ত ফল তিনি পাবেন না।

মানুষ পাচারকারীরা আপনার নিরাপত্তা বা আপনার ভবিষ্যতের বিষয়ে আগ্রহী নন। তারা শুধুমাত্র আপনার অর্থে আগ্রহী।

নিরাপদে এবং আইনানুগভাবে ভ্রমণ করুন

একটি অস্ট্রেলীয় ভিসাই হ'ল অস্ট্রেলিয়ায় প্রবেশ করার একমাত্র পথ।

অস্ট্রেলিয়ায় নিরাপদে ও বৈধভাবে ভ্রমণের জন্য আপনার বিকল্পগুলির বিষয়ে আরো জানতে, এই ওয়েবসাইটে যান স্বরাষ্ট্র দপ্তরের ওয়েবসাইট।

অস্ট্রেলিয়ার সীমান্তের শক্তি বৃদ্ধি করা হয়েছে

অস্ট্রেলিয়ার সীমান্তের শক্তি বৃদ্ধি করা হয়েছে

অস্ত্রেলিয়ান সরকারের অপারেশন সোভেরেইন বর্ডারস চালুর পর থেকে গত পাঁচ বছরে, আমরা সাফল্যের সাথে অস্ট্রেলিয়ায় নৌকা আসা বন্ধ করেছি এবং অস্ট্রেলিয়ার প্রতি মানব পাচারকারীদের হুমকি প্রতিহত করেছি।.

অস্ট্রেলিয়ার কর্তৃপক্ষ কেবল ৩৩ টি জাহাজই আটকাইনি, বরং ৮২৭ জন লোককে তাদের যাত্রাস্থলে ফেরত পাঠিয়েছিল, তবে আমরা আমাদের আঞ্চলিক অংশীদারদের সাথে কাজ করে ৭০ টিরও বেশী মানব পাচারের উদ্যোগকে দেশ ছাড়ার আগেই ভণ্ডুল করে দিয়েছি।.

সমুদ্র পথে মানব পাচার অস্ট্রেলিয়ার সীমান্ত নিরাপত্তার প্রতি এখনও হুমকি হয়ে আছে।.

সাম্প্রতিককালে ভিয়েতনাম থেকে আগত মানব পাচারকারীদের নৌকা সময়মত আমাদের এটাই মনে করিয়ে দিচ্ছে যে এই হুমকি এখনও দূর হয়নি।.

এই লোকগুলোকে আটক করে আমরা ফেরত পাঠিয়েছিলাম। এদের কেউই অস্ট্রেলিয়ায় বসতি গড়তে পারেনি। .

এবং এই নৌকাটি ফেরত গেলেও, মানব পাচারকারীরা এর অস্ট্রেলিয়ায় পৌঁছানোকেই তাদের প্রচারের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে যাতে করে তারা অন্য অসহায় লোকদের নৌকায় উঠতে উৎসাহিত করতে পারে।.

এসব অপরাধী মানব পাচারকারীদের কথা শুনবেন না।.

অস্ট্রেলিয়া অতিরিক্ত নজরদারী বাড়িয়েছে এই হুমকিকে মোকাবিলা করতে ।.

আপনি যদি অবৈধভাবে নৌকায় করে অস্ট্রেলিয়ায় আসার চেষ্টা করেন, তাহলে আপনাকে এই দেশে ঢুকতে দেওয়া হবে না।.

আমাদের সীমান্ত নিরাপত্তা সংক্রান্ত নীতিমালাগুলোর পরিবর্তন হয়নি, এবং সেটা হবেও না।.

আমরা আমাদের দেশের সার্বভৌমত্ব আর নিরাপত্তার বিষয়ে আপোষ করব না।.

আঞ্চলিক প্রক্রিয়াকরণ ব্যবস্থা অব্যাহত থাকবে এবং এই প্রক্রিয়ার আওতায় যেই পড়বে তাকে অস্ট্রেলিয়ায় পুনর্বাসিত করা হবে না।.

অপারেশন সোভেরেইন বর্ডারস এর শক্তিশালীকরণ মানব পাচারকারীদেরকে এবং যারা তাদের সহায়তা নিচ্ছে তাদেরকে একটি জোরালো বার্তা দিচ্ছে আমাদের সীমান্ত রক্ষা, মানব পাচারকারীদের প্রতিহত করা এবং সমুদ্রে মৃত্যু ঠেকাতে অস্ট্রেলিয়ার সরকারের সংকল্প আগের চেয়ে অনেক বেশী জোরালো।.

অস্ট্রেলিয়া তার সীমান্ত সুরক্ষা ক্ষমতা আরো শক্তিশালী করেছে

অস্ট্রেলিয় সীমান্তের কাছে আসা কোনও সন্দেহজনক জাহাজ/জলযানকে সনাক্ত করা এবং আটকানো নিশ্চিত করতে অস্ট্রেলিয়ার বর্ডার ফোর্স, নৌবাহিনী এবং এয়ার ফোর্স তাদের ক্ষমতা আরো শক্তিশালী করেছে।

অবৈধ অভিবাসনে অস্ট্রেলিয়ার সীমান্ত বন্ধ

অস্ট্রেলিয়াতে অবৈধভাবে যেকেউ আসার চেষ্টা করলে তার জন্য অস্ট্রেলিয়ার সীমান্ত বন্ধ, এবং তা বন্ধই থাকবে ।

সর্বশেষ মানুষ পাচারকারী নৌকা অস্ট্রেলিয়াতে এসে পৌঁছানোর তিন বছর হয়ে গেছে এবং আমাদের সীমান্ত এখন সবচেয়ে বেশী শক্তিশালী

যেকেউ অবৈধভাবে নৌকাতে করে অস্ট্রেলিয়াতে আসতে চেষ্টা করলে তাকে ঘুরিয়ে দেয়া হবে অথবা তার নিজের দেশে ফেরত পাঠানো হবে ।

মানুষ পাচারকারীদের কেলেঙ্কারীতে জড়াবেন না- তারা আপনার টাকা পাওয়ার জন্য আপনাকে যেকোনো কিছুই বলতে পারে ।

অস্ট্রেলিয়াতে অবৈধভাবে আসার চেষ্টা করলে কোনো রকমের আর্থিক সুবিধা পাওয়া যাবে না ।

ইউ এস –এর সাথে শরণার্থী পুনঃর্বাসনের ব্যবস্থাটি এককালীন, এর পুনরাবৃত্তি আর কখোনোই হবে না।

আঞ্চলিক প্রক্রিয়াকারী দেশে অবস্থানরত কেউই অস্ট্রেলিয়াতে স্থায়ী হতে পারবেন না ।

অবৈধভাবে নৌকাতে করে অস্ট্রেলিয়াতে আসতে চেষ্টা করা অর্থহীন এবং অত্যন্ত বিপদজনক ।

আপনি ধরা পড়বেন এবং আপনাকে ফেরত পাঠানো হবে ।

অস্ট্রেলিয়ার নৌকা ফেরত পাঠানোর নীতির কোনো পরিবর্তন হয়নি

যেকেউ অবৈধভাবে নৌকাতে করে অস্ট্রেলিয়াতে আসার চেষ্টা করলে তাকে শণাক্ত করা হবে, বাধা দেয়া হবে এবং অস্ট্রেলিয়ার জলভাগ থেকে নিরাপদে সরিয়ে নেয়া হবে । এই নিয়ম সবার জন্য প্রযোজ্য । এর কোনো ব্যতিক্রম হবে না ।